1. clients@www.dainikbangladesh71sangbad.com : DainikBangladesh71Sangbad :
  2. frilixgroup@gmail.com : Frilix Group : Frilix Group
  3. kaziaslam1990@gmail.com : Kazi Aslam : Kazi Aslam
কোম্পানীগঞ্জ বি এন পি হুজুগে নেতা কর্মিদের জিঘাংসায় ক্ষতিগ্রস্ত দল। অন্তরালের খবর সম্পুর্ন ভিন্ন। - dainikbangladesh71sangbad
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৯:১৭ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
জরুরী নিয়োগ চলছে জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল দৈনিক বাংলাদেশ ৭১ সংবাদ দেশের প্রতিটি বিভাগীয় প্রতিনিধি, জেলা,উপজেলা, স্টাফ রিপোর্টার, বিশেষ প্রতিনিধি, ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি, ক্যাম্পাস ও বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি বা সাংবাদিক নিয়োগ চলছে। সাংবাদিকতা সবার স্বপ্ন, আর সেই স্বপ্ন পূরণ করতে আপনাদেরকে সুযোগ করে দিচ্ছে দৈনিক বাংলাদেশ ৭১ সংবাদ দেখিয়ে দিন সাহসীকতার পরিচয়, অন্যায়ের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে সাংবাদিকতার বিকল্প নেই। আপনার আশপাশের ঘটনা তুলে দরুন সবার সামনে।হয়ে উঠুন আপনিও সৎ, সাহসী সাংবাদিক। দৈনিক বাংলাদেশ ৭১ সংবাদ পোর্টাল নিয়োগ এর নিদের্শনাবলী: ১/জীবন বৃত্তান্ত ( cv) ২/জাতীয় পরিচয় পত্রের ফটোকপি। ৩/সদ্যতোলা পাসপোর্ট সাইজের ছবি ১কপি। ৪/সর্বনিম্ন এইচএসসি পাস/সমমান পাস হতে হবে। ৫/বিভিন্ন নেশা মুক্ত হতে হবে। ৬/নতুনদের অগ্রাধিকার দেওয়া হবে। ৭/স্মার্টফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। ৮/স্মার্টফোন ব্যবহারে পারদর্শী হতে হবে। ৯/দ্রুত মোবাইলে টাইপ করার দক্ষতা থাকতে হবে। ১০/বিভিন্ন স্থানে ভ্রমন এর মানসিকতা থাকতে হবে। ১১/সৎ ও পরিশ্রমী হতে হবে। ১২/অভিজ্ঞতার প্রয়োজন নেই। ১৩/নারী-পুরুষ আবেদন করতে পারবেন। ১৪/রক্তের গ্রুপ যুক্ত করবেন। ১৫/স্থানীয় দের সাথে পরিচয় লাভ করতে হবে। ১৬/উপস্থিত বুদ্ধি, সঠিক বাংলা বানান, ও শুদ্ধ বাংলায় পারদর্শী হতে হবে। ১৭/ পরিশ্রমী হতে হবে যোগাযোগের জন্য ইনবক্সে মেসেজ করুন cv abuyousufm52@gmail.com দৈনিক বাংলাদেশ ৭১সংবাদ মোবাইল নং(01715038718)

কোম্পানীগঞ্জ বি এন পি হুজুগে নেতা কর্মিদের জিঘাংসায় ক্ষতিগ্রস্ত দল। অন্তরালের খবর সম্পুর্ন ভিন্ন।

Reporter Name
  • প্রকাশিত: মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৬৭ বার পড়া হয়েছে

======================
মাঈনউদ্দীন মিন্টু নোয়াখালী জেলা প্রতিনিধীঃ

ব্যারিষ্টার মওদুদ আহমেদ একটি নাম, একটি ইতিহাস, রাষ্ট্র পরিচালনার দক্ষ কারিগর। কোম্পানিগঞ্জের গর্বিত কৃতিসন্তান। সুদীর্ঘ ৫০ বছর ধরে কোম্পানিগঞ্জ বাসীকে অনেক দিয়েছেন। এই জনপদের মানুষ ধন্য, কাদের আর মওদুদের জন্য। এরপরও রাজনীতির আদুভাই মানষিকতায় নতুন নেতৃত্বের বিকাশ ঘটবেনা।
আজ বিএনপির রাজনীতি বিভক্তির মুলে কিছুটা ক্ষোভ, দূঃখ আর মান অভিমানের ফলশ্রুতি। ঢাকায় অবস্থানরত দের অন্যতম স্নেহ মমতায় পরিপূর্ণ ছিলো মওদুদ ফখরুল। অফিস টাইমে বা রাতের নির্জনতা কেটেছে টেলি আলাপে। একে অপরের বাসায় আতিথেয়তার ও কমতি ছিলোনা। অনুগত ফখরুল সকল বিষয়ে শেয়ার করতেন। মওদুদ আহমেদের কথা বাচনভঙ্গিতে বুঝা যেতো ফখরুলই তার আগামী সপ্নের লালিত উত্তরাধিকারী। ফখরুল ইসলামের ব্যবসা বানিজ্যের খোঁজ খবর মওদুদের নখদর্পনে।
একজন প্রত্যক্ষ তৃতীয় মাধ্যম হিসেবে এর আদি অন্তের রাজসাক্ষী ছিলাম আমি নিজেই। জনাব মওদূদ বগুড়ায় ইলেকশন করছেন, ফখরুলের অর্থের যোগান চলে যায় সুদুর বগুড়ায়। কোম্পানিগঞ্জের সকল বিষয়ে মওদুদের নির্দেশনা মতোই চলছে। তারই ধারাবাহিকতায় ২০০৯ এর উপজেলায় ফখরুল ইসলাম মওদুদের পছন্দনীয় প্রার্থী। এরপর থেকে তৃনমূল দেখবাল, অভিভাবকত্ব, অার্থীক অনুদান, মামলা খরচ, নেতা কর্মির কমিনিউকেশন মওদুদের প্রতিনিধিত্বের বাস্তবতা।
হঠাৎ সবই উলট পালট হয়ে গেলো সামান্য বিষয়ে। ব্যবসায়ীক কারনে ফখরুল ইসলাম আমেরিকা, লন্ডন, দুবাই, কাতার, সৌদি আরবে তার নিত্য বিচরন। ২০১৪ সালে বেগম খালেদা জিয়া ও তারেক রহমান ওমরায় অবস্থান কালীন জেদ্দা বিএনপির সেক্রেটারি প্রয়াত শহীদুল ইসলাম নান্নু আমার মাধ্যমে প্রস্তাব করেন যেন শিল্পপতি ফখরুল ইসলাম খালেদা তারেকদের সাথে দেখা করেন। তাতে ফখরুল ইসলাম তেমন আগ্রহ দেখান নাই। এক ফাঁকে জানতে চাইলে তিনি বলেন বিএনপিতে যোগ দিলে ঢাকায় সদলবলে আমাদের নেতা মওদুদ আহমেদ সাহেবের উপস্থিতিতেই উত্তম হবে।
ইতিমধ্যে ২০১৬ সালে লন্ডনে তারেক জিয়ার সাথে সাক্ষাতের সুযোগ মিলে যায়। তারেক জিয়া তার দলে কাজ করার জন্য ফখরুল সাহেবকে উৎসাহিত করেন। যেহেতু বেগম জিয়া বা তারেকের সাথে সরাসরি সাক্ষাৎ করার এখন পরিবেশ নেই। লন্ডনের ঐ সাক্ষ্যাতই জনাব ফখরুলের জন্য ছিলো মহেন্দ্রক্ষন। যা যে কেউ হাত ছাড়া করবেনা।
আর এই সংবাদ জানার পরই জনাব মওদূদ আহমেদ চরম বিরাগভাজন হয়ে ফখরুলের দিক থেকে ইউ টার্ন করা শুরু করেন। ফখরুল ইসলাম কোম্পানিগঞ্জের বিএনপি রাজনীতিতে আসার সংবাদ জানার পর স্থানীয় কিছু গদিলোভী মহল তাঁকে প্রতিপক্ষ ভাবতে শুরু করেন। তারা নানান কুটচালে দুই নেতার দূরত্বকে পোক্ত করার মিশনে মরিয়া। তারা বেগম হাছনা মওদুদকেও ক্ষেপিয়ে তোলেন। এই নাটকীয় পরিস্থিতিতে ও জনাব ফখরুল ইসলাম তার কোন আচরনে বক্তৃতা বিবৃতিতে নিজেকে সংযত রেখেই তার নেতা মওদুদ আহমেদ এর প্রশংসার কমতি করছেন না। গেলো সপ্তাহে মওদুদ আহমেদের অসুস্থতার সংবাদ পেয়ে আবুধাবিতে দোয়ার আয়োজন করেন। ফখরুল ইসলাম কখনো নিজেকে মওদুদ আহমেদের সমকক্ষ বা প্রতিপক্ষ মনে করেন না। তিনি হয়ত ভাবেন বয়ঃসন্ধিক্ষনে তিনি মওদুদ আহমেদের পাশে থাকবেন। সাধারণ লোকজন মনে করে দুই নেতার বুঝাপড়ার ভিত্তিতে কোম্পানিগঞ্জে বিএনপির ঘাটি আরো উর্বর হবে। তবে স্থানীয় কিছু অতিউৎসাহী নেতা কর্মির আচরন আরো সংযত হওয়া উচিৎ। এই ব্যপারে মিডিয়াগুলোর গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা থাকা দরকার। গত শনিবারের ফখরুল ইসলামের বাড়ীতে হামলা ও তার পরবর্তী মামলা উভয়ই বিএনপিকেই ক্ষতিগ্রস্থ করবে। এই বিষয়ে ফখরুল সাহেব বলেন সকল জনশক্তিই আমাদের দলের লোক সুতরাং বাড়াবাড়ি কারো জন্য সুফল বয়ে আনবেনা। বর্তমানে জনাব ফখরুল ইসলাম দেশের বাহিরে অবস্থান করছেন।

হাফিজ ছিদ্দিকি ২৭/০৯/২০২০

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

আরো সংবাদ পড়ুন
Copyright © 2020 DainikBangladesh71Sangbad
Theme Designed BY Kh Raad ( Frilix Group )
%d bloggers like this: